Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on skype

ইচ্ছে থাকলে কি না হয়! প্রায় ২ মাস রোজগারের পথ বন্ধ, নিজেদেরই অস্তিত্ব সঙ্কটে তবুও “আম্ফানে” আক্রান্ত সুন্দরবনের মানুষদের জন্য ওরা যা করলো তাতে বড়সড় প্রতিষ্ঠান / স্বেছাসেবি সংগঠনও লজ্জায় মুখ লুকাবে।

৫০০ লোকের খাবার পৌঁছে দিল বিরাটির তরুণ তুর্কির দল 1

২০শে মে ২০২০, প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয় কোলকাতা সহ দুই ২৪ পরগনা, সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়ে দক্ষিণ ২৪ পরগনার হিঙ্গলগঞ্জ, সাগর, পাথরপ্রতিমা ও অন্যান্য উপকূলবর্তী এলাকাগুলি। চাষের জমি থেকে ভিটে-বাড়ি হারানোর যন্ত্রণা বুকে নিয়ে ক্রমাগত খিদের সঙ্গে লড়তে থাকা মানুষগুলির যন্ত্রণা কতখানি, তা সেদিনই টের পেয়েছিল বিরাটির এই তরুণ তুর্কির দল ।

৫০০ লোকের খাবার পৌঁছে দিল বিরাটির তরুণ তুর্কির দল 2

হাতে অর্থের অভাব থাকলেও অসম্ভব ইচ্ছেশক্তির বলেই প্রায় ৫০০ লোকের জন্য তারা চিঁড়ে-মুড়ি, গুড়, বিস্কুট ও অন্যান্য শুকনো খাবারের পাশাপাশি পাউরুটি-কলা ও পানীয় জলের আয়োজন করে, শুধু তাই নয় নারী স্বাস্থ্যের কথা ভেবে ও করোনা-র সংক্রমণ ঠেকাতে পর্যাপ্ত স্যানিটারি ন্যাপকিন ও ফেস-মাস্কের ব্যাবস্থাও করে। এখানেই শেষ নয়, প্রায় ২দিন ধরে সারা এলাকা ঘুরে, সংগ্রহ করে জামা-কাপড়, মোমবাতি ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী।

বিরাটি

তারপর দীর্ঘ ৬ ঘন্টার সড়ক ও নদী পথ পেরিয়ে পৌঁছে যায় হিঙ্গলগঞ্জের প্রত্যন্ত গ্রামে এবং খাবার সহ অন্যান্য সামগ্রী সেই বন্যা দুর্গত মানুষ গুলির হাতে তুলে দেয়। তাদের এক তরুণ কর্মীর কথায় “আমরা আরও কিছু নিয়ে যেতে পারলে আরও কিছু মানুষের উপকার হত”

Share on facebook
Share on linkedin
Share on telegram
Share on whatsapp