মুখে দুর্গন্ধ হওয়ার কারণ ও ঘরোয়া উপায়ে তার প্রতিকার

আপনি যতই সুন্দর দেখতে হন বা আধুনিক হন না কেন লোকসমাজের মধ্যে যদি মুখ থেকে দুর্গন্ধ বের হয় তখন সকলের সামনে মুখের দুর্গন্ধের জন্য হাস্যকর হয়ে উঠতে হয় । কিছুটা অপদস্ত পরিস্থিতিতেও পড়তে হয়। কথা বলতে গেলেও দশবার ভেবে চিন্তে বলতে হয় আপনাকে কিংবা আপনার সঙ্গে কেউ কথা বলতে আসলে দূরত্ব বজায় রাখতে হয় । শরীরের জন্য এটি প্রত্যক্ষভাবে ক্ষতিকারক না হলেও শরীরের নানা সমস্যার লক্ষণ হতে পারে । মুখের দুর্গন্ধে অনেককেই অস্বস্তির মধ্যে পড়তে হয়। এই সমস্যা ব্যক্তিত্বের ক্ষেত্রেও বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে। দাঁতের ফাঁকে জমে থাকা খাবার ও জীবাণুর কারণে মুখে দুর্গন্ধ হতে পারে। এ জন্য নিয়মিত দাঁত ব্রাশ করা জরুরি। কিন্তু দিনে দু’বার ব্রাশ করে, ডেন্টাল ফ্লস বা মাউথওয়াস ব্যবহার করেও অনেকের মুখে দুর্গন্ধ থেকেই যায়।তবে মুখে দুর্গন্ধ হওয়ার পিছনে মুখের ভিতরে বা দাঁতের ফাঁকে জমে থাকা ব্যাক্টেরিয়ার প্রভাব ছাড়াও আরও অনেকগুলি কারণ থাকতে পারে।

মুখে দুর্গন্ধ হওয়ার কারণ

ডাক্তাররা বিশ্বাস করেন যে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মুখে দুর্গন্ধ হওয়ার কারণ হল মুখের স্বাস্থের  ঠিকভাবে খেয়াল না রাখা । তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে মুখের দুর্গন্ধ কোনো রোগেরও হুঁশিয়ারি দিতে পারে।

  • দাতের ফাঁকে খাবার জমে থাকাঃ
দাতের ফাঁকে খাবার জমে থাকা

যদি খাবার খাওয়ার পর আমরা মুখ ভাল করে না ধুই, তাহলে সেই খাবারের অংশবিশেষ দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকতে পারে, যার জন্য মুখ থেকে দুর্গন্ধ বেরোতে পারে । তাছাড়াও কাঁচা পেঁয়াজ, রসুন খেলে কিংবা এরকম জাতীয় কোনও খাবার খেলেও মুখে দুর্গন্ধ হতে পারে ।

  • দীর্ঘসময় ধরে না খেয়ে থাকাঃ

দীর্ঘসময় ধরে না খেয়ে থাকার ফলেও মুখে দুর্গন্ধ জন্মাতে পারে। সেই দিকে লক্ষ রাখা জরুরি।

  • মুখের আদ্রতার অভাবঃ

আমাদের মুখের লালা আমাদের মুখের ভিতরের অংশকে আর্দ্র রাখতে সাহায্য করে এবং তাকে পরিষ্কার রাখে । কিন্তু কখনও কখনও মুখে লালারসের কম উৎপাদনের জন্য জিভের নিচের দিকে বা মাড়ির আশেপাশের অংশে মৃত কোষ জমতে শুরু করে, যার থেকে বাজে গন্ধ বের হয় । সাধারণত শোওয়ার সময় এই সমস্যা দেখা দেয় ।

  • দাঁতের সমস্যাঃ

আমরা যদি দাঁতের ঠিক মতো যত্ন না করি, তাহলে এই সমস্যা দেখা দেবে । ঠিকমতো দাঁত ব্রাশ না করলে দাঁতের ফাঁকে খাবারের টুকরো আটকে থাকে, যার ফলে ব্যাকটিরিয়া জমা হয় । মুখের ভেতর দিকে ছত্রাক ও ফাঙ্গাসের কারণে মুখের ভেতরে যে কোনো ধরনের ঘা বা ক্ষত, ডেন্টাল সিস্ট বা টিউমার, মুখের ক্যানসার, দুর্ঘটনার কারণে ক্ষত থেকে দুর্গন্ধ হতে পারে। তাছাড়াও পাইরিয়ার মতো দাঁতের সমস্যাও মুখের দুর্গন্ধের কারণ হতে পারে ।

  •  অন্যান্য রোগের কারনেঃ

অন্যান্য রোগের কারনেও মুখে দুর্গন্ধ হয়ে থাকে।  হজমজনিত সমস্যা, ফুসফুসের সংক্রমণের কারণে মুখের দুর্গন্ধ হতে পারে । তাছাড়া পরিপাকজনিত সমস্যা, ক্যানসার লিভারের সমস্যা এবং শরীরের অন্যান্য বিপাকজনিত সমস্যা । এছাড়াও মাত্রাতিরিক্ত ধূমপান, কড়া হারে ডায়েটিং, সকালে প্রাতঃরাশ না করা, মুখের আলসার, মাড়ি থেকে রক্ত পড়া, গলায় সংক্রমণ, টনসিলের সংক্রমণের জন্যও এই সমস্যা হতে পারে কারণ এসবের ফলে শরীরে জিংকের ঘাটতি দেখা দেয় ।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করার ঘরোয়া উপায়

এখন জেনে নেওয়া যাক কোন কোন ঘরোয়া উপায়ে মুখের গন্ধ দূর করা যায়।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করার ঘরোয়া উপায়
  • দিনে অন্তত ২ বার দাঁত ব্রাশ করুন। এতে মুখে দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী, জীবাণু বা ব্যাক্টেরিয়া দাঁতের ফাঁকে বাসা বাঁধতে পারে না।
  • দুপুর ও রাতে খাওয়ার পর, হালকা গরম জলে ১ চামচ আদার রস মিশিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। দীর্ঘদিন করলে ফল পাবেন।
  •  রোজ সকালে, মুখের ভিতর নারকেল তেল লাগিয়ে, ৫-১০ মিনিট রেখে, হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে নিন।
  •  দাঁত মাজলেই মুখের সব জীবাণু চলে যায় না। প্রতিবার দাঁত মাজার সময় জিভও পরিষ্কার করুন। এতে জিভের ওপর জমা খাবারের কণা দূর হবে।
  • ধূমপান বর্জন করুন। ধূমপানের কারণে মুখের ভেতর শুকিয়ে যায় এবং মুখের মধ্যে জন্মানো জীবাণুর সংখ্যা দ্রুত বাড়তে থাকে। ফলে মুখে মারাত্মক দুর্গন্ধ হয়।
  • হজমের সমস্যা দূর করুন হজমের সমস্যার কারণেও মুখে দুর্গন্ধ হতে পারে। পেট পরিষ্কার না হলে এই সমস্যা বাড়তে পারে। 
  • খাওয়ার পরে অনেকেই মুখশুদ্ধি হিসেবে মৌরির ব্যবহার করে। খাবার পরে মৌরি চিবিয়ে খেলে মুখের দুর্গন্ধ চলে যায় এটি কেবল গন্ধ থেকে মুক্তি দেয় না , হজমশক্তিও উন্নত করতে সাহায্য করে।
  • পাতি লেবু ব্যবহারের পর সেই লেবুর খোসা দিয়ে দাঁত ঘষুন। এছাড়াও ওই খোসা গরম জলে ফুটিয়ে নিন। এবার স্বাভাবিক তাপমাত্রায় এনে ওই জলে মুখে দিয়ে কুলকুচি করুন বার বার। এতেও দুর্গন্ধ দূর হবে। সেই সঙ্গে প্রয়োজনীয় ক্যালসিয়ামের চাহিদাও পূরণ হবে। মুখে ঘা হবে না।
  • লবঙ্গ দাঁতের ব্যথা থেকে মুক্তি দেয় এটি আমরা সবাই জানি।  তবে এর সাহায্যে মুখের   দুর্গন্ধ থেকেও মুক্তি পাওয়া যায়।
  •  দিনে এক কী দু’বার হালকা গরম জলে ১ চা চামচ নুন মিশিয়ে গার্গেল করুন।
  • প্রতিদিন একটা  করে  পেয়ারা খান। এছাড়াও পেয়ারা পাতা চিবিয়ে খেলেও মুখের দুর্গন্ধ থেকে দূরে থাকতে পারেন।
  • এছাড়াও বিভিন্ন রকমের এসেনশিয়াল অয়েল দিয়ে মাউথফ্রেশনার জাতীয়  ঘরে বানিয়েই ব্যাবহার করতে পারেন।

  নানা কারণেই মুখে দুর্গন্ধ হতে পারে। তাই উপরোক্ত পদ্ধতিতে সুফল না পেলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

Recent Posts

আমাদের সাম্প্রতিক পোষ্ট গুলি দেখতে ক্লিক করুন

Cancer (ক্যান্সার)

ক্যান্সারের লক্ষণ ও তার চিকিৎসা

এন্ডোমেট্রিয়াল ক্যান্সার বা জরায়ুর ক্যান্সার- লক্ষণ ও চিকিৎসা

সমগ্র বিশ্বে, মহিলাদের মধ্যে যত রকম ক্যান্সার হয় তাদের মধ্যে এন্ডোমেট্রিয়াল ক্যান্সার বা জরায়ুর ক্যান্সার চতুর্থ । যদিও ভারতীয় মহিলাদের মধ্যে এই …

থাইরয়েড ক্যান্সার এর লক্ষণ

 থাইরয়েড গলার গোড়ায়  একটি ছোট, প্রজাপতি আকৃতির গ্রন্থি  যেখান থেকে  ট্রাইওডোথাইরোনিন (T3) এবং থাইরক্সিন (T4) হরমোন ক্ষরিত হয় এবং শরীরের বিভিন্ন বিপাকীয় …